বুধবার, ফেব্রুয়ারি ২৮, ২০২৪

খেজুরের রস পান, নিপাহ ভাইরাসে আক্রান্ত একজনের মৃত্যু

সিসিএন অনলাইন ডেস্কঃ

পাবনার ঈশ্বরদীতে খেজুরের রস খেয়ে নিপাহ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মো. রবিউল ইসলাম খোকন মালিথা (৫৬) নামে এক ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছে।

গতকাল বুধবার সন্ধ্যা ৭টার দিকে ঢাকার ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব নিউরো সায়েন্সেস ও হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে ঈশ্বরদী উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. আসমা খান বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

নিহত খোকন ঈশ্বরদীর মুলাডুলি ইউনিয়নের প্রতিরাজপুর গ্রামের রুস্তম আলী মালিথার ছেলে। রুস্তম মালিথা মুলাডুলি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ছিলেন।

স্থানীয় ও পরিবার সূত্রে জানা গেছে, গত এক সপ্তাহ আগে বাড়ির পাশের স্থানীয় একটি খেজুরের বাগান থেকে খেজুরের রস খেয়ে হঠাৎ করে অসুস্থ হয়ে পড়ে। তাকে ঈশ্বরদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা দিয়ে বাড়িতে আনা হয়।

এরপর তার জ্বর না কমলে রাজশাহীতে স্থানান্তর করা হয়। পরে অবস্থার অবনতি হলে ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব নিউরো সায়েন্সেস ও হাসপাতালে পাঠানো হয়। চিকিৎসাধীন অবস্থায় গতকাল বুধবার সন্ধ্যায় তিনি মৃত্যুবরণ করেন।

নিপাহ ভাইরাস ঠেকাতে খেজুরের কাঁচা রস এড়িয়ে চলার আহ্বান আইইডিসিআরেরনিপাহ ভাইরাস ঠেকাতে খেজুরের কাঁচা রস এড়িয়ে চলার আহ্বান আইইডিসিআরের
ঈশ্বরদী পৌরসভার মেয়র ও নিহতে চাচা ইছাহক আলী মালিথা বলেন, ‘খেজুরের রস খেয়ে নিপাহ ভাইরাসে আক্রান্ত হয় রবিউল। এক সপ্তাহ চিকিৎসাধীন থাকা অবস্থায় গতরাতে মারা গেছে। এ ঘটনায় আমরা পৌরসভার পক্ষ থেকে সতর্ক মূলক ব্যবস্থা নিয়েছি, যাতে মানুষ কাচা খেজুরের রস পান না করে।’

ঈশ্বরদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের পরিবার ও পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাক্তার আসমা বলেন, ‘ রবিউল নিপাহ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন। বিষয়টি জানার পর তার বাড়িতে গিয়ে ও এলাকাবাসীসহ সবাইকে সচেতন করা হয়েছে। খেজুরের কাচা রস খাওয়া থেকে সবাইকে বিরত থাকার পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে।’

নিপাহ ভাইরাস: মৃত্যুর হার ৭০ শতাংশের বেশি, প্রতিরোধে যা করণীয় পাবনার সিভিল সার্জন শহিদুল্লাহ দেওয়ান বলেন, ‘রবিউল নিপাহ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছে। বিষয়টি আমরা নিশ্চিত হয়েছি। ঘটনাস্থলে আমাদের মেডিকেল টিম পাঠানো হয়েছে। মেডিকেল টিমের রিপোর্ট ঢাকায় পাঠাতে হবে।’

তিনি আরও বলেন, ‘গতমাসের আইনশৃঙ্খলা কমিটির সভায় খেজুরের রস না খাওয়ার বিষয়ে আলোচনা করা হয়। এ ছাড়াও খেজুরের রস না খাওয়ার জন্য মাইকিং, লিফলেটসহ সতর্ককরণ কর্মসূচি পালন করা হয়েছে। তারপরও কীভাবে সে রস খেয়েছে সেটা আমরা খতিয়ে দেখছি।’

আরও

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

সর্বশেষ খবর